সাতকানিয়ায় আহত সেই মসজিদের ইমাম মানষিক ভারসাম্য হারাতে বসেছেন!

নিজস্ব প্রতিবেদক

সাতকানিয়া উপজেলার পুরানগড়ের সেই মসজিদের ইমাম মারধরের আঘাতে মানষিক ভারসাম্যহীন হয়ে পড়ার আশংকা করছেন তার ছেলেসহ পুরো এলাকাবাসী।

 

আজ ১৪ই এপ্রিল (বুধবার)আহত ইমাম দিল মোহাম্মদের ছেলের নিজস্ব ফেইসবুক পেইজে এমন আশংকা পোষন করে ষ্ট্যাটাস দিয়েছেন, তা চট্টগ্রাম সংবাদের পাঠকের জন্য হুবহু তোলে ধরা হলো,

 

বাবার আচরণে পরিবর্তন পরিলক্ষিত, অনেকটা মানসিক ভারসাম্যহীন হয়ে গেছে মনে হচ্ছে !!

গত ১০ই এপ্রিল শনিবারে আমার বাবা আমাদের ক্ষেতে কাজ করার সময় এলাকার দূধুর্ষ সন্ত্রাসী, কুখ্যাত ভূমিদস্যু আবু তাহের (প্রকাশ- তাইরগ্যা চোরা) অতর্কিত হামলা করে। মাথায় লাঠি দিয়ে আঘাত, হাতে ও কপালে কিরিচের কোপ মেরে প্রচন্ড রকমের জখম করেছে। দুটি আঙ্গুলের লিগামেন্টসহ হাতের তালু কেটে গেছে, কপাল ফেঁটেছে, মাথার তালু ফুলে ফোস্কা পরেছে। শনিবারের রাতটি আমরা কতটুকু শঙ্কায় ছিলাম সারারাত অপারেশন থিয়েটারের সামনে দাঁড়িয়ে থেকে তা বলার মতো না। বাবার তেমন হুশজ্ঞান বলতে তেমন ছিলোনা, পরেরদিন মোটামুটি জ্ঞান ফিরেছিলো। কিন্তু বাবার মধ্যে আচরণের পরিবর্তন, আচরণে অসঙ্গতি আমি লক্ষ্য করেছিলাম। ডাক্তারের সাথে এবিষয়ে কথা বললে ডাক্তার জানান শারীরিক নির্যাতনের কারনে ওনি প্রচন্ড রকমের মানসিক আঘাত পেয়েছেন তাই ওনার আচরণে পরিবর্তন ঘটেছে। কয়েকমাস আগেও তাইরগ্যা চোরা আমার বাবাকে মারার জন্য বহিরাগত লোক নিয়ে গেছিলো, জোর জবরদস্তি করে জায়গা দখল করতে না পেরে আমার বাবাকে বিভিন্ন সময় হেনস্তা করত, গায়ে হাত তোলার চেষ্টা করত। তাইরগ্যা চোরাকে আমি নিজেই অনেকবার বলেছি আপনি যদি আইনগতভাবে জমি পেয়ে থাকেন তাহলে আমরা অবশ্যই আপনার দখলে দিয়ে দিবো। কিন্তু সে কোন ডকুমেন্ট ছাড়া আমাদের জমি বারবার দখল করতে আসত পেশি শক্তির ভয় দেখিয়ে। আমার বাবাকে সে পিছু হঠাতে না পেরে খুনের পরিকল্পনা নিয়ে হামলা করেছিলো।।
এই ভূমিদস্যু নরপিশাচটার বিরুদ্ধে আমরা আইনের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে থানায় মামলা দায়ের করেছি, আমি আশাবাদী প্রশাসন এই নরপিশাচের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করবেন। আমি আরোও আশা করি কোনো অদৃশ্য শক্তির ইশারায় যেনো তাকে শাস্তি থেকে মুক্ত বর্তমানে এই নরপিশাচটা পলাতক আছে।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published.