আনোয়ারায় প্রেমের বিয়ের ৫মাস পর সংসার করতে না চাওয়াই বউয়ের উপর স্বামীর হামলা

প্রকাশিত: ৯:০০ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ২৭, ২০২১
আনোয়ারা প্রতিনিধি: চট্টগ্রামের আনোয়ারা উপজেলায় প্রেমের বিয়ের ৫মাস পর স্বামীর নির্যাতনে অতিষ্ঠ হয়ে সংসার করতে না চাওয়াই শান্তা আক্তার (১৮) নামের চার মাসের আত্মসত্তা এক নববধূর উপর হামলা করে তার হাত,কানের রগ কেটে দিয়েছে তার স্বামী সাকিল উদ্দিন সিহাব (২২)। গতকাল বুধবার (২৫ আগষ্ট) রাত ৯টার দিকে উপজেলার ১০ নং হাইলধর ইউনিয়নের পূর্ব হেটিখাইন গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। জানা যায়, আহত শান্তা আক্তার উপজেলার ১০ নং হাইলধর ইউনিয়নের পূর্ব হেটিখাইন গ্রামের মৃত আবুল কাশেমের এর মেয়ে। এবং সাকিল একই ইউনিয়নের দক্ষিণ গুজরা গ্রামের মোহাম্মদ আবু তাহের এর ছেলে। সাকিল একজন প্রবাসী। দীর্ঘদিন যাবৎ শান্তা আর সাকিলের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক ছিলো। গত পাঁচ আগে সাকিল দেশে এলে তারা দু’জনেই পালিয়ে বিয়ে করে। এরপর উভয়ের পরিবার তাদের বিয়ে মেনে নিলে তাদের দাম্পত্য জীবন চলতে থাকে। এরই মধ্যে শান্তা ৪ মাসের আত্মসত্তা হয়। শান্তার উপর হামলার বিষয়ে শান্তার বড় ভাই হাবিব জানায়,সাকিল ৫মাস আগে বিদেশ থেকে এসে আমার বোনকে বিয়ে করে,পরবর্তীতে সে আমার বোনের উপর নেশা করে করে যৌতুকের জন্য নির্যাতন শুরু করাই আমার বোন তার সংসার করবেনা বলে আমাদের ঘরে চলে আসে। এই বিষয়টি নিয়ে গতকাল (বুধবার) আমরা উভয় পরিবারের মাঝে পালের হাটে জনপ্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে বৈঠক হয়। বৈঠক শেষে সাকিল হঠাৎ করে আমাদের ঘরে গিয়ে আমার বোনের উপর হামলা করে। এখন আমার বোনের অবস্থা খুবই সংকটাপন্ন, বাঁচা নিয়ে সঙ্কা। এই বিষয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করেছেন এবং থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলেও তিনি জানায়। এইবিষয়ে সাকিলের সাথে মোটো ফোনে একাদিকবার চেষ্টা করেও যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। তবে বৃহস্পতিবার (২৬ আগষ্ট) দুপুর ২টার দিকে তার নিজ ফেইসবুক আইডির লাইভে এসে হামলার স্বীকারোক্তি দিয়ে সাকিল বলে,তারা দু’জনেই সম্পর্ক করে পালিয়ে বিয়ে করেছে। শান্তার বিভিন্ন দোষ দেখেও ভুল জেনেও সে কখনো কিচ্ছু বলেনি। এমনকি শান্তার অন্য ছেলের সাথে সম্পর্ক থাকার কথা জেনেও সে চুপ ছিলো। কিন্তু কিছুদিন আগে শান্তার পরিবারের লোকজন এসে তার দাদি এবং বাবাকে মারধর করে, সমাজের লোকজন বাঁধা দেওয়াই ওইদিন শান্তাকে তারা নিতে পারেনি কিন্তু এর দু’দিন পর শান্তা তার বাপের বাড়িতে পালিয়ে গিয়ে বলে যে যৌতুকের জন্য তার উপর অত্যাচার করা হচ্ছে। এই বিষয়টির সমাধানের জন্য গতকাল বৈঠক হয়। ওখানে শান্তা বলে যে তার সাথে সংসার করবেনা। সংসার না করার কারণ জানতে শান্তার ঘরে গেলে শান্তার মা তাকে থাপ্পড় দিতে শুরু করে আর শান্তা তাকে গালাগালি শুরু করে এবং মাবুদের ছেলে মামুন চুরি নিয়ে তার উপর হামলা করতে আসে তখন সে রাগ সামলাতে না পেরে সেই চুরি দিয়ে শান্তার উপর হামলা করে। এই বিষয়ে ৫নং হেটিখাইন ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মোহাম্মদ নাছির বলেন,আমার শরীরিক অসুস্থতার কারণে বৈঠকে আমি যেতে পারিনি তবে যতটুকু শুনেছি যা করতেছে সব ছেলেটাই করতেছে। ওকে সবাই অনেক বুঝানোর চেষ্টা করতেছে তবে কিছুতেই কিছু হচ্ছে না। শান্তার মেডিকেলে ভর্তি হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে চট্টগ্রাম মেডিকেল পুলিশ ফাঁড়ির কর্তব্যরত অফিসার এসআই নুরুল আলম জানান,গতকাল শান্তা নামের এক মহিলা স্বামীর নির্যাতনে গুরুতর আহত হয়ে গতকাল চট্টগ্রাম মেডিকেলে ভর্তি হয়েছে । তিনি এখন চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছে। ঘটনার বিষয়ে আনোয়ারা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এস এম দিদারুল ইসলাম সিকদার বলেন, এ বিষয়ে এখনো কোনো অভিযোগ পাইনি, অভিযোগ পেলে মামলা গ্রহণ করা হবে। নামঃ এম.এম.জাহিদ হাসান হৃদয় (আনোয়ারা,চট্টগ্রাম) মোবাইলঃ ০১৮৪৮-১৩৪৯২৭