সপরিবারে বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে আওয়ামীলীগকে নিশ্চিহ্ন করতে চেয়েছিল নরপিশাচের দল

প্রকাশিত: ৮:২৮ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১, ২০২১

৩০ আগস্ট ২০২১ ইং সোমবার সকাল ১১টায় উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে আলহাজ্ব মোস্তফিজুর রহমান বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ মাঠে অনুষ্ঠিত জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর ৪৬ তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের কালো রাতে স্বাধীনতা বিরোধী নরপিশাচ ঘাতকের দল বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা করে বাঙালী জাতির হৃদয় থেকে মুছে ফেলতে চেয়েছিল বঙ্গবন্ধুর নাম। ইতিহাস বিকৃতির হাজারো অপচেষ্টা সত্বেও সময়ের ব্যবধানে মৃত্যুঞ্জয়ী বঙ্গবন্ধুর অস্থিত্ব বাংলাদেশ নামক রাষ্ট্রীয় কাঠামোর সর্ব স্তরে আজ বিরাজমান। বঙ্গন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে ঘাতকরা সপরিবারে হত্যার মাধ্যমে যারা বাঙালি জাতির ইতিহাসে কালিমা লেপন করেছে তারা আজ ইতিহাসের আস্থাকুড়ে নিক্ষিপ্ত। বক্তারা বলেন, জাতির পিতার সারা জীবনের স্বপ্ন ছিল সোনার বাংলা গড়া, দেশকে একটি সুখী-সমৃদ্ধ রাষ্ট্রে পরিণত করা। বঙ্গবন্ধু তাঁর সেই স্বপ্ন পূরণ করে যেতে না পারলেও তাঁর সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে উন্নয়নের মহাসড়কে বাংলাদেশে। জননেত্রী শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ নেতৃত্ব পুরো বিশ্বব্যাপী প্রশংসিত। বিশ্ব দরবারে বর্তমানে তিনি একজন সফল প্রধানমন্ত্রী হিসেবে সুপরিচিত। বক্তারা বিদেশে অবস্থানরত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের খুনিদের ফিরিয়ে এনে দন্ড কার্যকর করার জোর দাবী জানান। বক্তারা জাতির পিতা হারানোর শোককে বুকে ধারন করে ঐক্যবদ্ধ লোহাগাড়া আওয়ামী লীগ গড়ার অঙ্গিকার ব্যক্ত করেন।

লোহাগাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি খোরশেদ আলম চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক সালাউদ্দিন হিরু’র সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোছলেম উদ্দিন আহমদ এমপি। প্রধান বক্তা ছিলেন দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুফিজুর রহমান। বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির দপ্তর সম্পাদক ও প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন ও চট্টগ্রাম-১৫ সাতকানিয়া লোহাগাড়া আসনের সংসদ সদস্য প্রফেসর ড. আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামুদ্দিন নদভী।

ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, আমিনুল ইসলাম আমিন ও সাংসদ প্রফেসর ড.আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামুদ্দিন নদভীর উপস্থিতি এবং এবং আগামীতে সকলেই একযোগে দলীয় স্বার্থে কাজ করার ঘোষনা দেয়ায় আজকের এই সমাবেশকে লোহাগাড়ায় আওয়ামী রাজনীতিতে নতুন দিগন্তে সূচনা আখ্যায়িত করে সর্বস্তরের নেতাকর্মীরা সন্তোষ প্রকাশ করতে দেখা যায়।

শোক সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর হায়দার চৌধুরী রুটন,দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি এডভোকেট একেএম সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী,সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট জহির উদ্দিন, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক নুরুল আবছার চৌধুরী
সাতকানিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান ও সাতকানিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি এম.এ মোতালেব সিআইপি, সাধারণ সম্পাদক কুতুবউদ্দিন চৌধুরী, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ডার আকতার আহমদ সিকদার, চট্টগ্রাম জেলা পরিষদ সদস্য ও দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ নেতা আনোয়ার কামাল, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক বিজয় কুমার বড়ুয়া, লোহাগাড়া প্রেসক্লাব সভাপতি নুরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদসহ ৯ ইউনিয়নের চেয়ারম্যানবৃন্দ এবং জেলা, উপজেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, শ্রমিকলীগ, তাঁতীলীগ, কৃষকলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, মহিলা আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন।

সমাবেশে যোগদানকালে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোছলেম উদ্দিন আহমদ এমপি, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী ব্যারিষ্টার বিপ্লব বড়ুয়া, উপ- প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন, সাতকানিয়া-লোহাগাড়ার মাননীয় সাংসদ প্রফেসর ড.আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামুদ্দিন নদভীসহ জেলা উপজেলা নেতৃবৃন্দ সাতকানিয়া কেরানীহাট রিসোর্টে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর ৪৬ তম শাহাদাৎ বার্ষিকী স্মরণে করোনা মহামারীতে ক্ষতিগ্রস্ত ও অসহায় মানুষের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেন।