প্রান্তিক জনগণের মাঝে সচেতনতা বৃদ্ধি করতে হবে

 

আনোয়ারা প্রতিনিধি

চট্টগ্রামের আনোয়ারায় ব্র্যাক মাইগ্রেশন প্রোগ্রামের নিরাপদ অভিবাসন ও বিদেশফেরতদের পুনরেকত্রীকরণ শীর্ষক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) উপজেলার উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে ব্র্যাক মাইগ্রেশন প্রোগ্রামের
উদ্যোগে ও রয়েল ড্যানিশ অ্যাম্বাসির অর্থায়নে নিরাপদ অভিবাসন ও বিদেশফেরতদের পুনরেকত্রীকরণ শীর্ষক উপজেলা কর্মশালা
অনুষ্ঠিত হয়।

সোশিও ইকোনমিক রিইন্টিগ্রেশন অব রিটার্নি মাইগ্রেন্ট ওয়ার্কারস অব বাংলাদেশ প্রকল্পের মাধ্যমে স্থানীয় পর্যায় থেকে শুরু করে জাতীয় পর্যায় পর্যন্তবিদেশফেরত অভিবাসীদের আত্মনির্ভশরীল গড়ে তোলার পাশাপাশি সামগ্রিক সহায়তা প্রদানের মাধ্যমে পরিবার, সমাজ ও দেশের মুলস্রোত ধারার সাথে পুনরেকত্রীকরণের লক্ষ্যে ব্র্যাকের মাইগ্রেশন প্রেগ্রামের কার্যক্রম সম্পর্কে আলোচনা করা হয়। কর্মশালায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম ডিভিশনাল ম্যানেজার,পার্টনারশীপ স্ট্রেনদেনিং ইউনিট (পিএসইউ), ব্র্যাক নজরুল ইসলাম মজুমদার। স্বাগত বক্তব্যে তিনি অভিবাসন খাতে কোভিড-১৯ মহামারির প্রভাব ও ভবিষ্যৎ, দেশের রিজার্ভে রেমিটেন্সের গুরুত্বের প্রতি আলোকপাত করেন।

শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন ব্র্যাক মাইগ্রেশন প্রোগ্রামের প্রোগ্রাম হেড শরীফুল ইসলাম হাসান। তিনি বলেন, কোভিডকালীন সময়ে সবচেয়ে বেশি রেমিটেন্স পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা। বাংলাদেশের অর্থনীতি দাঁড়িয়ে আছে তিনটি খাতের উপর কৃষি, তৈরি পোশাক শিল্প এবং প্রবাসীদের রেমিটেন্স এর উপর। আনোয়ারা উপজেলার প্রত্যেক পরিবারের মানুষ কেউ না কেউ প্রবাসে আছেন তাদের খোঁজ খবর রাখতে হবে। বিদেশ ফেরত ক্ষতিগ্রস্থ অভিবাসিদের যে সমস্তসেবা দেওয়ার দরকার সকল সেবা তাদের দিতে হবে, প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংকের ঋণের সুবিধা দিতে হবে। অনুষ্ঠানে মূলপ্রবন্ধ উপস্থানের মাধ্যমে ব্র্যাক মাইগ্রেশন প্রোগ্রামের কর্মপরিধি। আনোয়ারা উপজেলায় ও চট্টগ্রাম জেলায় ইন্টারভেনশন তুলে ধরেন ব্র্যাক মাইগ্রেশন প্রোগ্রাম চট্টগ্রামের ডিস্ট্রিক্ট কো-অর্ডিনেটর আবু বক্কার লিটন।বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন ওসি দিদারুল আলম সিকদার তিনি বলেন, নারী পাচার, সাগর-নদী পথে বিদেশ যাত্রা, অনিয়মিতভাবে, দালালদের প্ররোচনাসহ ইমিগ্রেশনের সমস্যা সমাধান করতে হবে। তিনি প্রবাসীদের সকল ধরণের আইনী সহায়তা করার জন্য আশ্বাস দেন। এরপর বিদেশফেরত অভিবাসীরা তাদের অভিজ্ঞতা তুলে ধরেন। কর্মশালায় উন্মুক্ত আলোচনায় অংশ নেন অভিবাসনের সাথে সম্পৃক্ত সরকারি কর্মকর্তাবৃন্দ, সাংবাদিক, নাগরিক সমাজের প্রতিনিধি, ব্র্যাক মাইগ্রেশন প্রোগ্রামের প্রতিনিধিবৃন্দ, বিদেশফেরত প্রতারিত ও ক্ষতিগ্রস্তঅভিবাসীগণ, বিদেশ গমনে আগ্রহী ব্যক্তিসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

কর্মশালায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা কর্মসংস্থান ও জনশক্তি অফিসের উপ-পরিচালক মো. জহিরুল আলম মজুমদার, বিশেষ অতিথি তাঁর বক্তব্যে অভিবাসীদের সরকারি সেবার পাশাপাশি ব্র্যাক মাইগ্রেশন প্রোগ্রামের কার্যক্রমসমূহ তুলে ধরেন এবং প্রবাসীদের দোরগোড়ায় তথ্য পৌঁছে দেবার জন্য ব্র্যাকসহ সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি আহবান জানান। কর্মশালার প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মরিয়ম, প্রধান অতিথির বক্তব্যে নিয়ম মেনে, সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক বিদেশ যাবার আহবান জানান। তিনি বলেন, নিয়ম মেনে বিদেশ যেতে হবে। প্রশাসন শুধু কাজ করবে সেটা না ভেবে জনপ্রতিনিধিদেরও এগিয়ে আসতে হবে।

কর্মশালায় সভাপতি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার শেখ জোবায়ের আহমেদ, সভাপতি তাঁর বক্তব্যে বিশ্বব্যাপি কোভিড মহামারীর পরেও বাংলাদেশের অভিবাসীদের পাঠানো রেকর্ড পরিমাণ রেমিটেন্স বিষয়ে আলোকপাত করেন। ব্র্যাক মাইগ্রেশন প্রোগ্রামের প্রবাসীদের জন্য হাতে নেওয়া কর্মকান্ডের প্রশংসা করে বলেন, ইউনিয়ন পর্যায়সহ প্রান্তিক জনগণের মাঝে সচেতনতা বৃদ্ধি করতে হবে। ভবিষ্যতে ব্র্যাক মাইগ্রেশন প্রোগ্রামের সকল কাজে সহযোগিতার আশ্বাস দেন এবং কর্মশালার সমাপ্তি ঘোষনা করেন।

সম্পাদনা: আই এইচ

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published.