রাঙ্গামাটির বাঘাইছড়িতে গোলাগুলি, নিহত ২

রাঙ্গামাটি: বাঘাইছড়ি উপজেলায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুই আঞ্চলিক দলের গোলাগুলিতে দুইজন নিহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও একজন।

বুধবার (২৯ ডিসেম্বর) দুপুর একটার দিকে উপজেলার রূপকারী ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থল থেকে দুজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার রূপকারী ইউনিয়নের দুই কিলো এলাকায় পাহাড়ের আঞ্চলিক রাজনৈতিক দল ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক) ও সন্তু লারমার নেতৃত্বাধীন পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির (জেএসএস) মধ্যে গোলাগুলি শুরু হয়। ঘণ্টাব্যাপী এই গোলাগুলিতে ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক) এর উপজেলা সমন্বয়ক জেনন চাকমা ও সন্তু লারমার নেতৃত্বাধীন জনসংহতি সমিতির এক কর্মী নিহত হন। তবে তাৎক্ষণিকভাবে তার নাম জানা যায়নি। এ ঘটনায় এলাকায় থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে।

রূপকারী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শ্যামল চাকমা বলেন, ঘটনাস্থলে পুলিশ-বিজিবি যাচ্ছে, আমিও সেখানে যাচ্ছি।

বাঘাইছড়ি উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) শরিফুল ইসলাম বলেন, ‘দুপুরে দুই কিলো নামক স্থানে দুইজন নিহত হওয়ার খবর পেয়েছি। আরও একজন আহত আছেন বলে শুনেছি।’

ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক) এর কেন্দ্রীয় সভাপতি শ্যামল কান্তি চাকমা (জালোয়া) অভিযোগ করেন, আমাদের দলের উপজেলা সমন্বয়ক জেনন চাকমা দোকানে বসে ছিলেন। এমন সময় সন্তু লারমার জেএসএস দলের কিছু সন্ত্রাসী তাকে গুলি করে হত্যা করে। তবে জনসংহতি সমিতির কর্মী কিভাবে মারা গেছে এই বিষয়ে তিনি কিছু জানেন না বলে জানিয়েছেন।

এদিকে সন্তু লারমার নেতৃত্বাধীন পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির (জেএসএস) কোনো নেতার বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

বাঘাইছড়ি থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. আসাদ জানান, ঘটনাস্থলে দুইজনের লাশ পড়ে আছে। লাশ উদ্ধার করে উপজেলা সদরে নিয়ে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছি।

চট্টগ্রমি সংবাদ/ আই এইচ।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published.