ভারতে এসে করোনাক্রান্ত নেপালের রাজা-রানি

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক : ভারতের কুম্ভমেলায় যোগ গিয়েছিলেন নেপালের সাবেক রাজা জ্ঞানেন্দ্র শাহ এবং রানি কোমল। গত মঙ্গলবার তাদের করোনার পরীক্ষার রিপোর্ট পজিটিভ আসে।

ভারত থেকে দেশে ফেরার পর বিমানবন্দরে তাদের স্বাগত জানাতে উপস্থিত ছিলেন কয়োকশো মানুষ। রাজা-রানির করোনা ধরা পড়ার পর তাদেরও পরীক্ষা করা হচ্ছে বলে জানানো হয়েছে। খবর হিমালয়ান টাইমসের

করোনাভাইরাসের ভয়াবহ পরিস্থিতির মধ্যেই ভারতে ১লা এপ্রিল থেকে শুরু হয়েছে কুম্ভমেলা। করোনায় বিশ্বের সবচেয়ে খারাপ পরিস্থিতির মধ্যে এই মেলা আয়োজন নিয়ে সমালোচনা চলছে। কুম্ভমেলায় একের পর এক আখড়ায় করোনা ধরা পড়ছে। এমনকি কুম্ভ থেকে ফিরলেই বাধ্যতামূলক ভাবে করোনা পরীক্ষার কথাও বলেছে কয়েকটি রাজ্য।

হরিদ্বারে কুম্ভমেলায় যোগ দিয়ে গঙ্গা স্নান সারেন ৭৩ বছরের জ্ঞানেন্দ্র এবং ৭০ বছরের কোমল। দেশে ফিরতেই নেপালের সাবেক রাজা-রানিকে জমকালো স্বাগত জানানো হয়। কিন্তু এখন তাদের করোনা ধরা পড়ার পর সেখানে উপস্থিতদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়েছে। খুঁজে দেখা হচ্ছে কারা কারা সরাসরি রাজা-রানির সংস্পর্শে এসেছিলেন।

২০০১ সালে নেপালের রাজপ্রাসাদে হত্যালীলায় মৃত্যু হয় তৎকালীন রাজা বীরেন্দ্র বীর বিক্রম শাহসহ বেশ কয়েক জনের। সেই হত্যাকাণ্ডের জন্য দায়ী করা হয় বীরেন্দ্রর ছেলে দীপেন্দ্রকে। তিনিও আত্মহত্যা করেন বলে জানা যায়। তারপর রাজা হন বীরেন্দ্রর ভাই জ্ঞানেন্দ্র।

২০০৮ সালে গণবিদ্রোহের মুখে তাকে ক্ষমতা ছাড়তে হয়। রাজতন্ত্র শেষ হয়ে নেপালে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা হয়। এখন রাজা জ্ঞানেন্দ্র খুব বেশি জনসমক্ষে আসেন না।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published.