২৩ জানুয়ারী ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে হস্তান্তর করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

 

 

মো. ইমরান হোসাইন, কর্ণফুলী (চট্টগ্রাম)

চট্টগ্রামের কর্ণফুলীতে মাথা গোঁজার ঠাঁই পেল উপজেলার ৫টি ইউনিয়নের ভূমি ও গৃহহীন ২৫টি দরিদ্র পরিবারের। স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এঁর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে উপজেলার ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের মাঝে উপহার দেওয়া হয়েছে এসব আধাপাকা ঘর।

শনিবার (২৩ জানুয়ারী ২০২১) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এসব ঘর হস্তান্তর কার্যক্রমের উদ্বোধন করবেন বলে জানা গেছে। ‘শেখ হাসিনার অবদান, গৃহহীনের বাসস্থান, ‘আশ্রয়ণের অধিকার, শেখ হাসিনার উপহার, এই শ্লোগানে ভূমি ও গৃহহীন পরিবারের স্থায়ীভাবে বাসযোগ্য গৃহ নির্মাণের প্রকল্প হাতে নিয়েছে সরকার।

কর্ণফুলী উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, প্রশাসনিক পুনর্বিন্যাস সংক্রান্ত জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটি (নিকার) ২০১৬ সালে ৯ মে ১১২তম সভায় পশ্চিম পটিয়ার ৫টি ইউনিয়ন চরলক্ষ্যা, জুলধা, চরপাথরঘাটা, বড়উঠান ও শিকলবাহা নিয়ে দেশের ৪৯০তম উপজেলা হিসেবে কর্ণফুলী উপজেলা গঠনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সদয় সম্মতি দেন। ২০১৬ সালে ১৯ জুলাই কর্ণফুলীকে উপজেলা গঠনের আদেশ জারি করা হয়। ২০১৭ সালের ২৯ এপ্রিল আনুষ্ঠানিকভাবে উপজেলার দাপ্তরিক কার্যক্রম শুরু করে উপজেলা প্রশাসন।

সূত্রে জানা যায়, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের আশ্রয়ণ প্রকল্প, ভূমি মন্ত্রণালয়ের গুচ্ছগ্রাম ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের দুর্যোগ সহনীয় বাড়ি প্রকল্পের সুবিধাভোগীদের নিয়ে এ প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হবে। জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকীর বছরে অর্থাৎ মুজিববর্ষে এটিই হবে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উপহার। এক তলাবিশিষ্ট দুই বেডের এই পাকা বাড়িতে থাকবে ড্রয়িংরুম, বারান্দা, টয়লেট, কিচেনসহ একটি পরিবারের বসবাসের উপযোগী বাসগৃহ।

কর্ণফুলী উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (অ. দা.) জামিরুল ইসলাম বলেন, মাঠ পর্যায়ে উপজেলা প্রশাসন কতৃক বাস্তবায়নাধীন প্রতিটি ঘরের জন্য বরাদ্ধ দেয়া হয়েছে এক লক্ষ ৭১ হাজার টাকা। এ টাকায় ২০ ফুট বাই ২২ফুট প্রস্তের ২টি কক্ষ, একটি রান্না ঘর ও একটি টয়লেটসহ সামনে খোলা বারান্দা তৈরী করা হয়েছে।

কর্ণফুলী উপজেলা আওয়ামীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান ফারুক চৌধুরী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আশ্রায়ন কর্মসূচির আওতায় গৃহহীন ও ভূমিহীন প্রকল্পের মাধ্যমে আমাদের রাজনৈতিক অভিভাবক মাননীয় ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ এমপি মহোদয়ের প্রচেষ্টায় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের নির্দেশনায় ২৫টি পরিবারকে বসত বাড়ি নির্মাণ করে দেয়া হচ্ছে। তিনি আরো বলেন, উপজেলার গৃহহীন পরিবার গুলো প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ এই উপহার পেয়ে খুশি। এ কর্মসূচি আগামীতেও পর্যায়ক্রমে চলবে। কোনো ঘরহীন পরিবার এ কর্মসূচির বাইরে থাকবে না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বাংলাদেশে কেউ গৃহহীন থাকবেন না।

কর্ণফুলী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহিনা সুলতানা দৈনিক চট্টগ্রাম সংবাদকে জানান, আগামী ২৩ জানুয়ারি শনিবার মুজিববর্ষ উপলক্ষে সারাদেশে ৬৬ হাজার ১শত ৮৯টি পরিবার ভূমি ও একক গৃহ পাবেন। এ কার্যক্রমের অংশ হিসেবে কর্ণফুলী উপজেলায় ৫টি ইউনিয়নের ভূমিহীন ও গৃহহীন ২৫টি পরিবারকে দলিল ও চাবি হস্তান্তর করা হবে।

চট্টগ্রামের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) এসএম জাকারিয়া জানান, মুজিববর্ষের উপহার হিসেবে সরকার ক ক্যাটাগরিতে যারা ভূমিহীন ও গৃহহীন তাদের এবং খ ক্যাটাগরিতে যাদের ভূমি আছে কিন্তু গৃহ নেই তাদের নতুন ঘর তৈরি করার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। আগামী শনিবার (২৩ জানুয়ারী) ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ঘর হস্তান্তর কার্যক্রমের উদ্বোধন করবেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এবিষয়ে জানতে চাইলে ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ এমপি দৈনিক চট্টগ্রাম সংবাদকে বলেন, বঙ্গবন্ধু সোনার বাংলা গঠনে কাজ করছেন তারই কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। লক্ষ্য একটাই- কোনো মানুষ যেন গৃহহীন না থাকে। আনোয়ারা-কর্ণফুলী উপজেলার গৃহহীনদের জন্য ঘর নির্মাণ হচ্ছে। এটা অব্যাহত থাকবে।

 

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published.