শীঘ্রই উচ্ছেদ অভিযান: স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান

লোহাগাড়ায় নির্মাণ সামগ্রীর দখলে সড়ক, ফেসবুকে পোস্ট করায় হুমকি

প্রকাশিত: ১২:২৬ অপরাহ্ণ, জুন ৭, ২০২১

নিজস্ব প্রতিবেদক:

লোহাগাড়া উপজেলার পুটিবিলা ইউনিয়নের গোরস্থান সিকদার পাড়ায় সড়কের এক পাশ দখল করে নির্মাণসামগ্রী রেখে একটি ভবন নির্মাণ করা হচ্ছে। ফলে বৃষ্টিতে সড়কজুড়ে সয়লাব হয়ে আছে পানিতে। এতে করে সড়কটিতে পথচারী ও যানবাহন চলাচলে বিঘ্ন ঘটছে। গত এক মাস ধরে সড়ক দখল করে নির্মাণসামগ্রী রাখলেও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কোনও তৎপরতা বা তদারকি দেখা যায়নি।

প্রভাবশালী হওয়ায় নির্মাণসামগ্রী দিয়ে রাস্তা দখল করে ভবন নির্মাণের বিষয়ে বাড়ির মালিককে কিছু বলার সাহস পাচ্ছেন না স্থানীয়রা। তবে ফেসবুকে সড়কে নির্মাণসামগ্রী রাখার ছবিসহ পোস্ট দিলে বঙ্গবন্ধু ছাত্র পরিষদ চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলার তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক মো. খোরশেদকে মারধর করার হুমকি দেয়া হয়েছে।

খোরশেদ জানান, সড়কের একটি অংশ জুড়ে ভবন নির্মাণের জন্য ইট, কংকর ও বালুর স্তুপ জড়ো করে রাখা হয়েছে। বাকি অংশ জুড়ে রয়েছে পানি। নির্মাণসামগ্রী রাখায় সড়কে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে।

তিনি বলেন, ‘বাড়ির মালিক প্রভাবশালী হওয়ায় কেউ কোনো কথা বলতে সাহস পাচ্ছে না। আমি ফেসবুকে সড়কে নির্মাণসামগ্রী রাখার ছবিসহ পোস্ট দিলে আমাকে বিভিন্ন হুমকি দেয়া হচ্ছে। রাইহান চৌধুরী নামক এক আইডি থেকে আমাকে ফেসবুক মেসেঞ্জারে কল দিয়ে মারধর করার হুমকি দেয়া হয়।’

রাইহান চৌধুরী নামক আইডি থেকে খোরশেদকে হুমকি দেয়ার একটি অডিও ক্লিপ চট্টগ্রাম সংবাদের হাতে এসেছে।

খোরশেদ জানান, হুমকি পেয়ে বর্তমানে চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভোগছেন তিনি। এ বিষয়ে সাতকানিয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, লোহাগাড়া উপজেলা প্রশাসন, থানা পুলিশ ও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের দৃষ্টি কামনা করেছেন।

স্থানীয় এক পথচারী বলেন, অনেকদিন ধরেই এ সড়কের উপর পাথর, বালু, ইট ও কংকর রেখে ভবন নির্মাণ কাজ চলছে। এতে সাধারণ পথচারীদের চলাচলে দুর্ভোগ বেড়েছে। সড়কের উপর নির্মাণসামগ্রী রেখে ভবন নির্মাণ করার এমন নজির পৃথিবীর কোথাও নেই।

এ বিষয়ে কলেজ পড়ুয়া এক ছাত্র বলেন, সবসময় এ পথ দিয়েই যাতায়াত করি। সড়কের উপর এসব বালি, ইট ও কংকর রাখার কারণে বৃষ্টি হলে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। এতে এই পথে চলতে ভোগান্তি পোহাতে হয়।

দুর্ভোগের কথা স্বীকার করে এক রিকশাচালক বলেন, কি বলবো, আমরা গরিব মানুষ। আমাদের কথা তো কেউ শুনবে না। তাই এসব দেখার পরও চুপ থাকতে হয়। কিছু বলতে পারি না। আর বলবই বা কাকে?

এ বিষয়ে অভিযুক্ত বাড়ির মালিক তাজ উদ্দিনের বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

জানতে চাইলে পুটিবিলা ইউপি চেয়ারম্যান মো. ইউনুছ বলেন, সড়কের উপর নির্মাণ সামগ্রী রেখে কখনো ব্যক্তি মালিকানাধীন ভবন নির্মাণ করতে পারে না। সড়কে এসব রাখলে তো সাধারণ মানুষের দুর্ভোগ বাড়ার কথা। অতি শীঘ্রই উচ্ছেদ অভিযান চালানো হবে।