খালেদাকে বিদেশে পাঠানোর অনুরোধ জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে চিঠি

প্রকাশিত: ৬:১৯ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২২, ২০২১

গুরুতর অসুস্থ বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে পাঠানোর অনুরোধ জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে চিঠি দিয়েছে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের পাঁচ শরিক দল।

রোববার (২১ নভেম্বর) দুপুরে সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দফতরে গিয়ে তার হাতে এই চিঠি পৌঁছে দেন বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম বীরপ্রতীক।

এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন ন্যাশনাল পিপলস পার্টির (এনপিপি) চেয়ারম্যান ড. ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এনডিপি) চেয়ারম্যান কারী এম এ তাহের, বাংলাদেশ জাতীয় দলের চেয়ারম্যান সৈয়দ এহসানুল হুদা ও লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এলডিপি) মহাসচিব শাহাদাত হোসেন সেলিম।

দুপুর দেড়টার দিকে শাহাদাত হোসেন সেলিম সারাবাংলাকে বলেন, ‘ম্যাডামের মুক্তি এবং দেশের বাইরে উন্নত চিকিৎসার অনুরোধ জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে আমরা চিঠি দিয়েছি। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল নিজে আমাদের কাছ থেকে চিঠি গ্রহণ করেছেন। তিনি (স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী) আমাদেরকে আশ্বস্ত করেছেন, এই চিঠি প্রধানমন্ত্রীর কাছে পৌঁছে দেবেন।’

গুরুতর অসুস্থ বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এর আগে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর এ বছর এপ্রিল থেকে মে পর্যন্ত টানা ৫৪ দিন হাসপাতালে ছিলেন তিনি। খালেদা জিয়া বহু বছর ধরে আর্থ্রাইটিস, ডায়াবেটিস, কিডনি, ফুসফুস, চোখের সমস্যাসহ নানা জটিলতায় ভুগছেন।

দুর্নীতির মামলায় দণ্ড নিয়ে ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি কারাগারে যান। দেশে করোনাভাইরাস মহামারি শুরুর পর পরিবারের আবেদনের প্রেক্ষিতে গত বছর ২৫ মার্চ ‘মানবিক বিবেচনায়’ তাকে শর্তসাপেক্ষে মুক্তি দেয় সরকার। তখন থেকে তিনি গুলশানের ভাড়া বাসা ফিরোজায় রয়েছেন। উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে বিদেশে নেওয়ার অনুমতি চেয়ে বেশ কয়েকবার আবেদন করেছে তার পরিবার। কিন্তু সরকার সেই আবেদন আমলে নেয়নি। এ ব্যাপারে আইনমন্ত্রীর বক্তব্য, সাময়িক মুক্তির শর্ত অনুযায়ী তাকে দেশে রেখেই চিকিৎসা দিতে হবে। বিদেশে যেতে হলে কারাগারে ফিরে আবেদন করতে হবে।